• নবীজির সংসার ﷺ

    নবীজি! আমাদের নবীজি! আমাদের প্রাণের চেয়ে প্রিয় নবীজি! কখনো কী ভেবেছি নবীজি স. এর সংসার জীবন কেমন ছিলো?
    স্ত্রীদের সাথে কেমন ছিলেন তিনি? তিনিও যে স্ত্রীদের সাথে মান-অভিমান করতেন আমরা কি তা জানি? আবার স্ত্রীরাও অভিমান করলে কী করে তা ভাঙতেন? কেমন করে স্ত্রীদের নিয়ে বিনোদন করতেন? পারিবারিক কোন বিপর্যয় আসলে কী করে সেটার সমাধান করতেন?
    নিজ ছেলে মেয়েদের সাথে কেমন ছিলেন তিনি? হযরত ফাতিমা থেকে শুরু করে অন্যান্য ছেলেমেয়েদের সাথে তাঁর সম্পর্ক কেমন ছিলো? মেয়ে জামাইদের সাথে কেমন সম্পর্ক ছিলো? শ্বশুর হিসেবে কেমন ছিলেন তিনি?
    নিজ নাতিনাতনিদের সাথে কেমন ছিলেন তিনি? কেমন করে তাদের আদর-যত্ন করতেন? কীভাবে তাদের বিভিন্ন আবদার পূরন করতেন?
    নবীজির ঘরে কোন মেহমান আসলে কীভাবে তাদের আপ্যায়ন করতেন? কেমন আচরণ করতেন তাদের সাথে?
    এভাবে প্রিয় নবীজির পুরো সংসারজীবনের নানানদিক এই বই থেকে হাদীসের আলোকে জানা যাবে ইন শা আল্লাহ।

    ৳ 186৳ 267
    প্রকাশনী:
  • গুরাবা

    ইসলামের পরিভাষায় গুরাবা তাদেরকেই বলা হয়, যারা দ্বীনের রজ্জুকে শক্তভাবে আঁকড়ে ধরার দরুন নিজের পরিবার-পরিজন, সমাজ-রাষ্ট্রসহ সবার কাছে অপাঙক্তেয় হয়ে যায়।
    গুরাবা একটি আরবী বহুবচন শব্দ। এর একবচন হলো গরিব। গরিব শব্দের শাব্দিক অর্থ হচ্ছে :—বিদেশি, প্রবাসী, আগন্তুক, মুসাফির, অপরিচিত ইত্যাদি। গুরাবার পারিভাষিক অর্থের মধ্যে এর শাব্দিক অর্থের সবগুলোই পুরোপুরি বা আংশিক পাওয়া যায়। কারণ, দ্বীনের জন্য যিনি সমাজের লোকদের থেকে বিভিন্ন বিড়ম্বনার শিকার হন, তিনি তাদের থেকে দূরে সরে যান বা তারাই তার থেকে দূরে সরে যায়। ফলে ওই দ্বীনদার ব্যক্তি তাদের কাছে বহিরাগত কোনো অপরিচিত আগন্তুকের মতোই হয়ে যান।

     

    ৳ 100৳ 147

    গুরাবা

    ৳ 100৳ 147
    প্রকাশনী:
  • শয়তানের চক্রান্ত

    কুরআনের ভাষ্যমতে শয়তান আমাদের প্রকাশ্য শত্রু। সে সব সময়ই চায় নানান রকম চক্রান্তের ফাঁদ পেতে আল্লাহর বান্দাদের গোমরাহ করতে। সেজন্যই শয়তানের চক্রান্ত সম্পর্কে হুঁশিয়ার থাকা প্রতিটি মুমিনের কর্তব্য।
    ইমাম ইবনু আবিদ দুনইয়া রাহিমাহুল্লাহ সেই দিকে লক্ষ করেই রচনা করেন মাকায়িদুশ শাইতান নামক পুস্তিকাটি, যেখানে তিনি শয়তানের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডকে কুরআন-হাদিসের আলোকে তুলে ধরেন।
    সেই পুস্তিকাটিরই অনুবাদ বাংলাভাষী পাঠকদের সামনে পেশ করা হচ্ছে।
    এই পুস্তিকার সাথে বিভিন্ন পাপাচারের নিন্দা করে লেখকের রচিত আরেকটি পুস্তিকার অনুবাদও সংযুক্ত করা হয়েছে। কারণ, সেগুলোও একধরনের শয়তানি কর্মকাণ্ড; যার মধ্যে নাচ-গান-পাশা-জিনা-সমকাম ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।
    দুই পুস্তিকার এই সমন্বিত অনুবাদ আশা করি পাঠকদের মনে দোলা দেবে। শয়তানের শয়তানি সম্পর্কে সচেতন থাকতে তাদেরকে সাহায্য করবে।

    ৳ 133৳ 190
    প্রকাশনী:
  • কুররাতু আইয়ুন : যে জীবন জুড়ায় নয়ন

    পশ্চিমা পুঁজিবাদ আমাদের শিখিয়ে দিয়েছে, ঘরে থাকো মানে তুমি অকম্মা, বেকার। তোমার স্ত্রী কী করে? কিছু করে না, হাউজওয়াইফ।
    .
    গর্দভ, তোমার স্ত্রী শিল্পী, মানবশিল্পী। পুঁজি কামানো-জমানো, বস্তু কেনা, ভোগ করাই জীবনের অর্থ-সার্থকতা-মন্ত্র; এই দাসত্বের চশমা খোলো, আর দুনিয়া দ্যাখো। যে টাকা কামায়, সে কম্মা আর যে টাকা বাঁচায়, সে অকম্মা, কিছু করে না! এই ছাগলপ্রজাতির সাইকোলজি থেকে বের হও, ভাইজান। আপনার স্ত্রীর কারণে আপনার সন্তানের টিচার-খরচ, ডাক্তার-খরচ, ডেকেয়ার খরচ, আরও কত খরচ বেঁচে যায়, সেটা চোখে পড়ে না। মাস শেষে যে টাকাটা আপনি জমা করে স্বপ্নের জাল বোনেন, ওটাই আপনার স্ত্রীর ইনকাম। মানবশিল্পের পিছনে বেঁচে যাওয়া মূল্যটাই জমানোর মওকা মেলে আপনার।

    ৳ 122৳ 175
    প্রকাশনী:
  • দুখের পরে সুখ

    সাহল ইবনু সাআদ রাদিয়াল্লাহুআনহু থেকে বর্ণিত, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস রাদিয়াল্লাহুআনহুমা-কে বললেন, ‘আমি কি তোমাকে এমন কিছু কথা শিক্ষা দেব না, যার মাধ্যমে তুমি উপকৃত হবে?’
    তিনি বললেন, ‘নিশ্চয়ই হে আল্লাহর রাসূল!’
    তিনি তখন বললেন─
    “হে বৎস, তুমি আল্লাহ আআলার (বিধি-নিষেধ) রক্ষা করবে, তিনি তোমাকে রক্ষা করবেন। তুমি তাঁর (আল্লাহর বিধি-বিধানের) প্রতি লক্ষ রাখবে, তাহলে তাকে কাছে পাবে। সুখের সময় আল্লাহকে চেনো, তিনি দুঃখের সময় তোমাকে চিনবেন। যদি কোনো কিছু চাইতে হয়, তবে আল্লাহর কাছে চাও। আর যদি সাহায্য প্রার্থনা করতে হয় তবে আল্লাহর কাছেই করো। ঘটিতব্য বিষয়ে কলম শুকিয়ে গেছে। যদি লোকেরা চেষ্টা করে তোমাকে এমন বিষয়ে উপকৃত করতে, যা আল্লাহ তোমার জন্য লিপিবদ্ধ করেননি, তবে তারা কখনোই তা পারবে না। আর যদি লোকেরা তোমার এমন কোনো ক্ষতি করতে চেষ্টা করে, যা আল্লাহ তোমার ভাগ্যে লিখে রাখেননি, তাহলেও তারা তা পারবে না। যদি সততার সাথে সুদৃঢ়ভাবে আল্লাহর জন্য আমল করতে সক্ষম হও তবে তা করো। আর যদি সক্ষম না হও তবে যে বিষয়টি তোমার কষ্টকর লাগছে সে বিষয়ে (তোমার জন্য) প্রভূত কল্যাণ রয়েছে। জেনে রাখো, সবরের সাথেই রয়েছে (আল্লাহ-প্রদত্ত) সাহায্য। বিপদের সাথেই রয়েছে বিপদমুক্তি। দুঃখের পরেই রয়েছে সুখ।”
    (আল-মুস্তাদরাক, হাকিম : ৫/৫৪১)

    ৳ 154৳ 220
    প্রকাশনী:
  • মুহাম্মাদ সা. : হৃদয়ের বাদশাহ (১ম খণ্ড)

    সর্বশেষ নবী মুহাম্মাদ সা. : হৃদয়ের বাদশাহ গ্রন্থটি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ‎ওয়া সাল্লামের অনুপম আদর্শময় জীবনের বিস্তারিত উপখ্যান। ‎
    যুদ্ধ-বিগ্রহের বাইরে সমাজের একজন সক্রিয় সদস্য হিসেবে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‎আলাইহি ওয়া সাল্লামের ভূমিকা ও উদ্দেশ্যকে এখানে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ‎উল্লেখ্য তার জীবদ্দশায় যতগুলো যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে, তেষট্টি বছরে সেগুলোর ‎ব্যাপ্তি দুমাসেরও বেশি নয়।
    এ গ্রন্থে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জীবনের ক্রমধারার প্রতিই ‎‎কেবল দৃষ্টি নিবদ্ধ করা হয়নি, বরং সাহাবায়ে কেরাম, পরিবার ও নিকটস্থ ‎সদস্যদের দৃষ্টিতে তার চরিত্র, আচরণ ও গুণাবলীর প্রতি সবিশেষ দৃষ্টি নিবদ্ধ ‎করা হয়েছে। ‎
    ৳ 440৳ 800
    প্রকাশনী:
  • তাফসীরে মুযিহুল কুরআন (প্রথম খণ্ড)

    মূল লেখক মুসলিম জাহানের একজন প্রসিদ্ধ ইসলামী ব্যক্তিত্ব—হযরত শাহ আব্দুল ‎কাদের দেহলভী রহ. (১৭৫৩-১৮৫৪)—এ উপমহাদেশে ইসলামের ঝাণ্ডা বহনে ‎অন্যতম আলোর দিশারী। দীর্ঘ চল্লিশ বছর ধরে তিনি কুরআনের এই তাফসীর ‎লিখেছেন যা ইলহামী তাফসীর হিসেবে বিখ্যাত হয়ে আছে। এজন্যই মাওলানা কাসেম ‎নানুতুভী রহ. মন্তব্য করতে দ্বিধা করেননি : ‘যদি উর্দু ভাষায় কুরআন নাযিল হতো, ‎তবে তার বাগরীতি খুব সম্ভব এমনই কিংবা এর কাছাকাছি হতো।’ ‎এ উপমহাদেশে মূযিহুল কুরআন ছাপানোর পর দীর্ঘ সময় পর্যন্ত উলামায়ে কেরাম ‎কুরআন মাজীদের নতুন কোনো তরজমা লেখার প্রয়োজনবোধ করেননি। তবে ভাষার ‎প্রাচীনতার কারণে কোথাও কোথাও শব্দের আধুনিক ব্যাখ্যা প্রয়োজন ছিল। এ ‎কাজটিও সুচারুভাবে সম্পন্ন করেছেন মাওলানা আখলাক হুসাইন কাসেমী সাহেব। ‎তিনি এ গ্রন্থের কঠিন শব্দের বিশ্লেষণ ও জটিলতা সমাধানে সুবিশেষ মেহনত-পরিশ্রম ‎করেছেন। দীর্ঘ ১২ বছর ধরে পুরো গ্রন্থটিকে নতুনভাবে সাজিয়েছেন এবং প্রায়াজনীয় ‎টীকা ও ব্যাখ্যা সংযোজন করেছেন। ‎
    ৳ 440৳ 800
    প্রকাশনী:
  • তোমাকেই বলছি হে আরব

    গ্রন্থটি মূলত ইসমাঈয়্যাত এর অনুবাদকে কেন্দ্র করে রচিত হলেও এতে আরও কিছু ভাষণ বিভিন্ন কিতাব ও রেসালা থেকে সংযুক্ত ‎করা হয়েছে। ফলে আরবে প্রদত্ত ভাষণের সঙ্গে এ উপমহাদেশের বিভিন্ন স্থানে প্রদত্ত ভাষণও রয়েছে। উনবিংশ শতাব্দির মাঝামাঝি ‎এসব ভাষণে ঐ সময়ের রাজনৈতিক ও সামাজিক প্রেক্ষাপটে ইসলাম চর্চা ও বাস্তবতার নানা অসঙ্গতি তুলে ধরা হয়েছে। মুসলমানদের ‎সার্বিক দুর্গতির কারণ চিহ্নিত করার পাশাপাশি ভবিষ্যৎ কর্মপন্থাও বর্ণনা করা হয়েছে। বর্তমান বিশ্বের সার্বিক পরিস্থিতির তেমন ‎‎কোনো উন্নতি হয়নি। বরং পুরো বিশ্ব মুসলমানদের বিরুদ্ধে জোট বেধে ইসলাম ও মুসলমানদের নিশ্চিহ্ন করার কাজে মেতে উঠেছে। ‎ফলে গ্রন্থটি তার যুগের মানুষকে যেমন আলোড়িত করেছিল, এখনো একইভাবে এসব বক্তব্য মুসলমানদের আশার আলো হয়ে আছে। ‎এটি স্বতঃসিদ্ধ যে, আরবেই ইসলামের সূচনা এবং এখনো ইসলামের কেন্দ্রভূমি হয়ে আছে। তার পরামর্শ ও আশা-আকাক্সক্ষা অনুযায়ী ‎আরব বিশ্ব জেগে উঠলেই বিশ্বের মানচিত্রে ইসলামের পতাকা সমুন্নিত হবে। সেখান থেকেই পরিবর্তন সূচিত হওয়া প্রয়োজন। একদিন ‎হবেও। তখন মুসলিম জাতি ফিরে পাবে তাদের হারানো ঐতিহ্য ও সম্মান। ‎

    ৳ 110৳ 200
    প্রকাশনী:
  • জীবন ও কর্ম : উমর ইবনুল খাত্তাব রা. (২য় খন্ড)

    মরা বর্তমানে এক বিশৃঙ্খল পৃথিবীতে বসবাস করছি। তবে তা উমর ‎রা.-এর সমকালীন যুগের বিশৃঙ্খলতা থেকে বেশি নয়। উমর রা.-এর ‎জীবন শুরু হয়েছিল জাহেলিয়াতের যুগে এবং শেষ হয়েছিল ইসলামের ‎‎স্বর্ণযুগে। শিক্ষা গ্রহণের জন্য ইসলামের দ্বিতীয় খলীফার জীবন-ইতিহাস ‎এক অমূল্য সম্পদ। তিনি এমন সব চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছিলেন ‎‎যেগুলো এর আগে কাউকে মোকাবেলা করতে হয়নি। আর তিনি এসব ‎চ্যালেঞ্জ ইসলামের সঠিক মূল্যবোধ এবং শরীয়তের সীমারেখায় থেকেই ‎সফলভাবে মোকাবেলা করতে সমর্থ হয়েছিলেন। ‎
    যারা এ সমস্যাসঙ্কুল পরিবেশে জাতিকে নেতৃত্ব দিতে চান, তাদের জন্য ‎এ গ্রন্থটিতে একজন আদর্শ মুসলিম নেতার দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করা হয়েছে ‎যিনি তার অধীনস্থ সৈন্য, মহিলা, শিশু, অমুসলিম জাতি-গোষ্ঠি এবং ‎এমনকি পশু-পাখিসহ সকলের ব্যাপারে আল্লাহর সামনে জবাবদিহিতার ‎ভয় করতেন। উমর রা. এমন একজন সফল ও দূরদর্শী নেতা ছিলেন ‎যিনি রাষ্ট্রের সকল বিষয়ে খোঁজখবর রাখতেন এবং যে কোনো কঠিন ‎সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্বে সমাজের বিজ্ঞ ও দক্ষ ব্যক্তিদের সঙ্গে পরামর্শ ‎করতেন। ‎
    অন্য সকলের জন্য এ গ্রন্থ ইসলামী ইতিহাসের এক চমকপ্রদ এবং ‎তাৎপর্যপূর্ণ অংশকে জানার পথকে উন্মুক্ত করবে। একই সাথে এটি ‎এক গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাকেও তুলে ধরবে যে, প্রাচুর্য কিংবা অর্থ-বিত্তের ‎মাধ্যমে আমাদের শক্তি ও সাহস অর্জিত হয় না, বরং সেটি আসে ‎আল্লাহর নিকট পরিপূর্ণভাবে নিজেকে সমর্পণ এবং ইসলামের রজ্জুকে ‎‎দৃঢ়ভাবে আঁকড়ে ধরার মাধ্যমে।
    ৳ 330৳ 600
    প্রকাশনী:
  • ফজর আর করব না কাযা

    অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি ঈমানী পরীক্ষা হলো ফজরের নামাযের পরীক্ষা!
    পরীক্ষাটি কঠিন; কিন্তু অসাধ্য নয়।
    ফজরের পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নাম্বার প্রাপ্তির পথ হলো পুরুষদের জন্য মসজিদে জামাতের সঙ্গে নিয়মিত ফজরের নামায আদায় করা আর নারীদের জন্য নিয়মিত ঘরেই প্রথম ওয়াক্তে নামায আদায় করে নেওয়া। আর অতি গুরুত্বপূর্ণ এই পরীক্ষায় অকৃতকার্যতা হলো নির্ধারিত সময়ে নামায আদায়ে সক্ষম না হওয়া।
    তবে সর্বোচ্চ নাম্বার প্রাপ্তি ও অকৃতকার্যতার মাঝে আছে অনেকগুলো স্তর।
    একজন হয়তো অধিকাংশ সময় মসজিদেই নামায আদায় করেন; কিন্তু মাঝে মধ্যে মসজিদের জামাত ছুটেও যায়।
    আরেকজনের অবস্থা সম্পূর্ণ বিপরীত। মাঝে মধ্যে মসজিদে নামায আদায় করেন; অধিকাংশ নামাযেই জামাত ছুটে যায়।
    কেউ হয়তো ফজরের নামায নিয়মিত ঘরেই আদায় করেন; অবশ্য ওয়াক্তের মধ্যেই।
    আবার কেউ ঘরেই নামায আদায় করেন; তবে প্রতিদিনই ওয়াক্ত শেষ হওয়ার পর!
    স্তর যদিও অনেক; কিন্তু নিষ্ঠাবান মুমিন বান্দার কাক্সিক্ষত সফলতার স্তর হলো নিয়মিত মসজিদে জামাতের সঙ্গে ফজরের নামায আদায় করা।
    প্রশ্ন হতে পারে, ফজরের নামায কতটা গুরুত্বপূর্ণ?!

    ৳ 160৳ 320
    প্রকাশনী:
  • নব্যক্রুসেডের পদধ্বনি

    ক্রাইস্টচার্চের রক্তাক্ত ট্রাজেডিতে ব্যবহৃত অস্ত্রে সন্ত্রাসী ব্রেন্টন টারান্ট যেসব শব্দ, সংকেত ও বাক্য লিখেছে, দেখতে যদিও এগুলো কালো রঙের অস্ত্রের গায়ে সাদা হরফে লেখা এলোপাথাড়ি কিছু শব্দাক্ষর; কিন্তু গভীরভাবে লক্ষ করলে বুঝা যায়, এগুলো হাজার বছর আগের সেই ক্রুসেডের সযত্নে অঙ্কিত একটি মানচিত্র!

    কথিত সভ্যতা শান্তি ও মানবতার ফেরিওয়ালা পশ্চিমাদের সামনে এভাবেই তাদের স্বজাতি ভাই তাদের চেপে রাখা ইতিহাস চিত্রিত করেছে। ঐতিহাসিকভাবে খ্রিষ্টধর্ম কতটা যে নৃশংস, পৈশাচিক ও বুনো এবং মানুষ হত্যার বৈধতা কীভাবে ইতিহাস ধরে ধরে তারা লালন করে আসছে, তা আজ সে পৃথিবীবাসীর সামনে খোলাসা করে দিয়েছে।

    ৳ 240৳ 480
    প্রকাশনী:
  • তালিবুল ইলম গঠনের আদর্শ রূপরেখা

    কোনো বিষয়ে জ্ঞানী হতে হলে সে বিষয়ে অন্বেষণের জন্য থাকতে হয় অদম্য স্পৃহা, অসামান্য আগ্রহ এবং সর্বোন্নত অভিলাষ; এটিই সফলতার প্রকৃত রূপরেখা। প্রবল আগ্রহই এর মূলভিত্তি; এ ছাড়া ইলম অন্বেষণ সম্ভব নয়। পাশাপাশি চূড়ান্ত লক্ষ্য অর্জন এবং বাস্তবায়নে প্রয়োজন দুরদর্শিতা আর সঠিক ‘দিকনির্দেশ’ বক্ষমাণ এ গ্রন্থে শায়খ মুহাম্মদ আওয়ামা প্রায় চল্লিশটির মতো ‘পথনির্দেশ’ উল্লেখ করেছেন; যেগুলা একাধারে ছাত্র-উস্তাদ সকলের জন্যেই সমান উপকারী। সরকারি-বেসরকারি নির্বিশেষে বাংলাভাষীদের প্রতিটি দ্বীনি প্রতিষ্ঠানের বিশেষভাবে সকল উস্তাদের হাতে এবং ব্যাপকভাবে সকল তালিবুল ইলমের হাতে বইটি সংগ্রহে রাখা উচিত। বইটিতে বর্ণিত পূর্বসূরিদের ত্যাগ-তিতিক্ষা এবং ইলম অন্বেষণের পথে তাদের সীমাহীন আত্মবিলীন ইতিহাস পড়ে নিশ্চিতভাবে পাঠক অনুপ্রাণিত হবে। জীবনপথের পাথেয় খুঁজে পাবে।

    ৳ 250৳ 500
    প্রকাশনী:
  • সোয়াদ

    পৃথিবীর বাগানে প্রতিটি শিশুই একটি ফুল। সঠিক যত্ন ও পরিচর্যা ফুলশিশুকে দিতে পারে বিশ্বাসদীপ্ত সুন্দর ভবিষ্যৎ। পক্ষান্তরে অনাদর ও অবহেলায় ফুলশিশু অকালেই ঝরে পড়ে। অবিশ্বাস ও অসুন্দর তার জীবনকে করে কলুষিত। মাকতাবাতুল হাসান চায়, প্রতিটি শিশু ফুল হয়ে আজীবন সুবাস ছড়িয়ে যাবে; খুঁজে পাবে সত্য ও সুন্দরের পথ। এরই ধারাবাহিকতায় মাকতাবাতুল হাসানের এবারের আয়োজন ‘সোয়াদ’। বইটিতে ছোটো-বড়ো ৩৭টি গল্প সংকলিত হয়েছে। প্রতিটি গল্পই শিশুর সামনে তুলে ধরবে বিশ্বাসদীপ্ত আর্দশ মানুষ হওয়ার রঙিন পাঠ। সে হিসেবে বড়োও কিন্তু “ সোয়াদ” এর আস্বাদন থেকে বঞ্চিত হবে না। গল্পের স্বপ্নীল ভুবনে পাঠককে স্বাগতম।

    ৳ 130৳ 260

    সোয়াদ

    ৳ 130৳ 260
    প্রকাশনী:
  • আপনার দোয়া কি কবুল হচ্ছে না?

    নশ্বর এই পৃথিবী হলো পরীক্ষা কেন্দ্র। প্রত্যেক মানুষকেই এ পৃথিবীতে বসবাস করার সময় বিভিন্ন ধরনের অবস্থা, ঘটনা-দুর্ঘটনা, প্রীতিকর ও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। কিছু লোককে দেখা যায়, এ ধরনের প্রতিকূল পরিস্থিতির মুখে পড়লে ভীষণ ডিপ্রেশনের শিকার হয়ে দু‘আ করাই ছেড়ে দিয়ে বসে। কাউকে এ কথাও বলতে শুনা যায় যে, ভাই, আমি অনেক দু‘আ করেছি; কিন্তু কবূল হয় না।
    আমাদেরকে অবশ্যই এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে হবে যে, আমাদের মাঝে এমন কোন প্রতিবন্ধকতা রয়েছে; যার কারণে আমাদের দু‘আ গুলো কবূল হচ্ছে না ?
    এই বইটিতে সে বিষয়গুলো বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে । কবুল না হওয়ার বিভিন্ন কারণ ও দু‘আর কবূলিয়ত ত্বরান্বিত করার উপায় সম্পর্কে বিশ্লেষণমূলক আলোচনা পেশ করা হয়েছে। আশা করি, এ গ্রন্থটি হবে আমাদের হৃদয়ের অসংখ্য জিজ্ঞাসার উত্তর। হতে পারে , এটি হবে নিরাশার অন্ধকারে আপনার জন্যে আশার প্রদীপ।

    ৳ 55৳ 110
    প্রকাশনী:
  • আদর্শ মুসলিম ও তার ব্যক্তিত্তের সরূপ

    আজকের মনুষ্যজাতি, বিশেষ করে মুসলিমদের খুব বেশি প্রয়োজন মানবতার জন্য একটি অনন্য চারিত্রিক আদর্শের প্রতীক তৈরি করা। কারণ, এ ছাড়া বেঁচে থাকা আনন্দহীন, অসহনীয়। এটি ব্যতীত সুশীল মানবীয় মূল্যবোধ গড়ে ওঠবে না। ইসলামও তার প্রকৃত তাৎপর্য নিয়ে প্রতিভাত হতে পারবে না। কী সেই অনন্য মানবসত্তা? কীভাবে সেই সৌন্দর্যময় ব্যক্তিত্ব তৈরি করতে হবে- এই বইটিতে পাঠক খুজে পাবেন তার জবাব।
    -ড. মুহাম্মদ আলী আল-হাশেমী

    ৳ 220৳ 440
    প্রকাশনী:
  • শেষ চিঠি

    উপন্যাসের প্রধান দুটি চরিত্রের একটি হচ্ছে- ধার্মিক পরিবারের মেয়ে নওশিন। যার বাবা একটা সৎ উদ্দেশ্য সামনে রেখে মেয়েকে মেডিকেল কলেজে পড়াচ্ছেন। তিনি চান, মেয়ে সবসময় ধর্মীয় ধ্যান-ধারণায় বেড়ে উঠুক। কিন্তু মেয়ের পছন্দ পশ্চিমা-সংস্কতি। ধর্মভীরু মানুষদের ওর কাছে কেমন যেন সেকেলে ও অনাধুনিক মনে হয়। ওর ধারণা এরা নারীদের অধীকারবঞ্চিত করতে চায়। এটা তো নওশিনের ধারণা। কিন্তু আসলেই কি ধর্মবিশ্বাসী মানুষগুলো এমন। নাকি এর বিপরীত?
    উপন্যাসটি এমনই কিছু প্রশ্নের মুখোমুখি দাঁড় করাবে পাঠকদের।…

    ৳ 100৳ 200

    শেষ চিঠি

    ৳ 100৳ 200
    প্রকাশনী:
  • আমরা সেই জাতি

    বর্তমান বিশ্বে মুসলিম দেশ ও মুসলমানদের অবস্থা দেখে অনেক মুসলিম-হৃদয়ই হতাশায় আক্রান্ত। মুসলিম জাতি আবার নতুনভাবে জেগে উঠতে পারে―সেক্ষেত্রেও তারা হতাশ। হতাশার এই ঢেউ-সাগরে বক্ষ্যমাণ বইটিতে মুসলমানগণ অবশ্যই একটি অবলম্বন পেয়ে যাবেন―আর তা হলো ‘আশা’। বইটি তাদের অন্তরের মধ্যে আশার সঞ্চার ঘটাবে এবং গোটা মুসলিম জাতির উপর যে হতাশা চেপে বসেছে, তা রহিত করবে। বিশেষকরে উজ্জীবিত হয়ে উঠতে পারবে আমাদের তরুণ প্রজন্ম।
    বইটির পুরোটাই মূলত আশা সঞ্চারক একটি আহবান… এতে রয়েছে নতুনভাবে ঘুরে দাঁড়াবার আশা―আশা রয়েছে নেতৃত্ব ও কর্তৃত্বের… আশা রয়েছে সাহায্য ও বিজয়ের। আশা রয়েছে―মুসলিম জাতি বিশ্বের সকল জাতির মাঝে তার সম্মান ও মর্যাদার স্থানটি আবার ফিরে পাবার।

    ৳ 60৳ 120
    প্রকাশনী:
  • এটাই হয়তো জীবনের শেষ রমাযান

    চলে গেছে জীবনের কতগুলো রমযান!
    পুষ্পিত বসন্তের সুবাসিত ফল্গুধারা নিয়ে!
    রহমত-মাগফিরাত ও নাজাতের বার্তা নিয়ে!
    দরজায় কড়া নাড়ছে আরেকটি ‘মাহে রমযান‘!
    অসামান্য অর্জন ও অত্যুচ্চ প্রাপ্তির অপার সম্ভাবনা নিয়ে!
    কিন্তু ….। কীভাবে যেন কেটে যায় দিনগুলো! হেলায়-ফেলায়- অবহেলায়-উদাসীনতায়! মাস শেষে আফসোস! বার দু’য়েক দীর্ঘশ্বাস! রমযান এল, রমযান গেল, এগার মাসের মতই!
    অথচ ….।
    এই রমযানই হয়তো জীবনের শেষ রমযান! শেষ সুযোগ ক্ষমা লাভের! শেষ সুযোগ প্রাপ্তি ও অর্জনের! গতবার কতজন ছিলেন! সাহরীতে-ইফতারীতে! জীবনের পরতে-পরতে! আজ তারা নির্জন কবরে! রমযান শেষেই হয়তো আমার পালা, ডাক আসার! তাহলে ….। কীভাবে কাটাবেন আপনার জীবনের শেষ রমযান?! কীভাবে কাজে লাগাবেন প্রতিটি ক্ষণ, সেকেন্ডের প্রতিটি ভগ্নাংশ?! কীভাবে ভাবতে শিখবেন- ‘এটাই আমার জীবনের সর্বশেষ রমযান’?! তা জানতেই প্রিয় পাঠক আপনার জন্য ‘এটাই হয়তো জীবনের শেষ রমযান’!

    ৳ 65৳ 130
    প্রকাশনী:
  • তিউনিসিয়ার ইতিহাস

    ড. রাগিব সারজানি এ-বইতে তিউনিসিয়ার প্রাথমিক ইতিহাস থেকে শুরু করে ২০১১ সালের অর্ভ্যত্থানের বর্ণনা দিয়েছেন। তিউনিসিয়া ইসলামের ঘাঁটিতে পরিনত হয়েছিল। একসময় উসমানি সাম্রাজ্যের অধীনতায় চলে যায়। তারপর দেশটিতে ফ্রান্সের দখলদারত্ব শুরু হয়। দখলদারদের শাসনামলে দেশ থেকে ইসলামকে বিলুপ্ত করার জন্য জোর প্রচেষ্টা চালানো হয়। বিশেষ করে শিক্ষাব্যাবস্থা ও ইসলাসি নিদর্শনগুলের ওপর আঘাত হানা হয়। ফরাসি দখলদারত্বের সমাপ্তি ঘটলে প্রজাতন্তের ঘোষণা দেওয়া হয়। এরপর ২০১১ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ পঞ্চাশ বছরে মাত্র দুইজন ব্যাক্তি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন। তাঁরা ইসলামের বিরুদ্ধে নিরবচ্ছিন্ন যুদ্ধ চালিয়ে যান। অবশেষে ২০১১ সালের অভ্যুত্থান সংঘটিত হয়। লেখক এ-বইতে এসব ঘটনার চমকপ্রদ বর্ণনা দিয়েছেন।

    ৳ 90৳ 180
    প্রকাশনী:
  • আমাদের সোনালি অতীত

    মানুষ গল্পপ্রিয়। এটা মানুষের স্বভাবগত বৈশিষ্ট্য। গল্প পড়তে ভালো লাগে, শুনতেও ভালো লাগে। বয়ান বক্তৃতায় যদি থাকে গল্পের রস, তাহলে তো কথাই নেই! সকল শ্রোতা নড়ে-চড়ে বসে। একেবারে মজে যায়। হারিয়ে যায় গল্পের মাঝে। এ কথা অনস্বীকার্য যে, বিষয়বস্তু শ্রোতাদের অন্তরে গভীরভাবে গেঁথে দেওয়া ও আকর্ষণ সৃষ্টির ব্যাপারে গল্পের ছলে নসিহত ও কাহিনির অবতারণা বড়ই ক্রিয়াশীল। আর গল্পগুলো যদি হয় সাহাবাজীবনের, তাহালে তো সোনায় সোহাগা। কেননা, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ইনতেকালের পর সারা পৃথিবীতে যারা ইসলামের আদর্শ ও আলো ছড়িয়ে দিয়েছেন, যাদের রক্ত, ঘাম, শ্রম ও বিপুল ত্যাগ-তিতিক্ষার বিনিময়ে ইসলাম সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়েছিল, তারাই হলেন রাসুলের প্রিয় সাহাবি রাদিয়াল্লাহু আনহুম। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পর তাদের জীবনে ও কর্মে ইসলামের প্রায়োগিক রূপ মূর্ত হয়ে উঠেছিল। তাই ইসলামকে বুঝতে ও জানতে হলে সাহাবিগণের জীবনাদর্শ, তাদের জীবনের গল্প ও নসিহতের কোনো বিকল্প নেই। এ গ্রন্থে আরবের পাঠকনন্দিত লেখক ড. মুহাম্মদ ইবনে আবদুর রহমান আরিফি গল্পের ভাষায় সাহাবি ও তাবেয়ি-জীবনের নানান চিত্র তুলে ধরেছেন। ছোট ছোট গল্পঘটনার মাধ্যমে লেখক তুলে ধরেছেন সোনালি মানুষের দিনযাপন। সাহাবিদের জীবনের চিত্তাকর্ষক হীরাখণ্ডগুলো ছড়িয়ে দিয়েছেন এই বইয়ের পাতায় পাতায়। জীবনের পরতে পরতে বিশুদ্ধতার ছোঁয়া পৌঁছে দেবার এবং জীবন বদলে দেওয়ার গল্পভাষ্যই হলো-আমাদের সোনালি অতীত।

    ৳ 154৳ 220
    প্রকাশনী:
  • দ্য অটোমান এম্পায়ার : উসমানি সাম্রাজ্যের ইতিহাস

    হিজরি সপ্তম শতাব্দী। মোঙ্গলীয়দের আক্রমণে লণ্ডভণ্ড আব্বাসীয় সালতানাত। কনস্টান্টিনোপলের খ্রিষ্টানদের সাথে লড়াইয়ে রোমের সালজুক সালতানাতের প্রাণ ওষ্ঠাগত প্রায়। ইসলামি ইতিহাসের এক চরম দুর্যোগপূর্ণ সময়। ঠিক এই দুর্যোগপূর্ণ সময়ে মেঘের আড়াল থেকে উঁকি দিয়ে হেসে ওঠে এক নবারুণ সূর্য। দিগ-দিগন্তে ছড়িয়ে পড়ে সেই সূর্যের দীপ্তি। ইসলামি সাম্রাজ্যের মেঘলা আকাশকে স্বচ্ছ এবং প্রখর রোদের আকাশে পরিণত করা সেই সূর্যের নাম ‘উসমানি সালতানাত’। ইসলামি ইতিহাসের এক সোনালি অধ্যায় জুড়ে ছড়িয়ে যে সালতানাতের ব্যাপ্তি। যারা শতাব্দীর পর শতাব্দী দোর্দণ্ড প্রতাপের এবং ন্যায়নিষ্ঠার সাথে শাসন করে গেছেন মুসলিম বিশ্ব। একের পর এক রাজ্য বিজয় করে ইসলামকে করেছেন সমুন্নত এবং সম্প্রসারিত। সারা বিশ্ব যাদেরকে জানে ‘অটোমান সাম্রাজ্য’ নামে। দীর্ঘকাল যাদের কথা চর্চা হয়ে আসছে ইতিহাসের পাতায় পাতায়। কীভাবে উত্থান হলো এই মহা শক্তিশালী সালতানাতের? কী তাদের পরিচয়? কোথা থেকে তাদের আগমন? কীভাবেই বা এ মহাশক্তিশালী সাম্রাজ্যের পতন হলো? কীভাবে ধ্বংস হলো শত শত বছরের খিলাফতব্যবস্থা? প্রশ্নগুলো যদি আপনার মস্তিষ্কের দরজায় কড়া নাড়তে থাকে, তাহলে মেলে ধরুন “দ্য অটোমান এম্পায়ার” কে। আশা করি সকল প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।

    ৳ 560৳ 800
    প্রকাশনী:
  • জীবনের সফর

    তথ্য প্রযুক্তিনির্ভর এই সভ্যতায় আমাদের জীবনযাত্রা, আমাদের বেড়ে ওঠা। জীবন পরিচালনায় আমরা পশ্চিমা সংস্কৃতি, পশ্চিমা মানসিকতা, ধর্ম ও নৈতিকতা বিবর্জিত পশ্চিমা জীবনাদর্শসহ দুনিয়ার বিভিন্ন মোহে পড়ে ভুলে গেছি আমাদের জীবনের উদ্দেশ্য ও গন্তব্য। আমাদের জ্ঞান, প্রজ্ঞা, বিবেক রয়েছে বলেই আমরা অন্যান্য প্রাণীর চেয়ে আলাদা, অন্য সৃষ্টিদের চেয়ে আমরা শ্রেষ্ঠ। আমরা মানুষ। মানুষ বলেই আমরা ন্যায়-অন্যায় বুঝি। মানুষ বলেই আমরা খুন-ধর্ষণের বিচার চাই। সামাজিক নিরাপত্তা, বৈষম্যহীন সমাজব্যবস্থা চাই। স্বাধীনতার দাবিতে সোচ্চার হই। রাস্তায় কিছু কুকুর একত্র হয়ে নিপীড়ন বিরোধী সমাবেশ করছে, এরকম কি কখনো হয়েছে? আমরা যে কুকুর বা ভেড়ার মতো শুধুই একটা প্রাণী না, এটা বুঝতে পারছেন? আমরা অনন্য। আমরা মানুষ। আর মানুষ মাত্রই আপনাকে তিনটি মৌলিক প্রশ্ন নিজেকে করতে হবে ১. কোথা থেকে আমার এই অস্তিত্ব? ২. আমার এই অস্তিত্বের উদ্দেশ্য কী? ৩. আমার গন্তব্য কোথায়? বক্ষ্যমাণ গ্রন্থে আরবের বিখ্যাত লেখক ও পৃথিবীখ্যাত দায়ি উল্লিখিত তিনটি প্রশ্নের উত্তর সুন্দর ভাষা প্রয়োগে, আকর্ষণীয় ভঙ্গিতে তুলে ধরেছেন বিভিন্ন প্রবন্ধের মাধ্যমে। উল্লিখিত তিনটি প্রশ্নের উত্তর জানতে পড়ুন ‘জীবনের সফর’। ‘জীবনের সফর’ বলে দেবে আপনার এই তিনটি প্রশ্নের উত্তর…

    ৳ 210৳ 420
    প্রকাশনী:
  • জীবন গড়ার কথামালা (মাওয়ায়িজে ইবনু তাইয়িমা)

    গ্রীষ্মের তাপদাহে ফেটে চৌচির হওয়া জমি যেমন আকাশ থেকে নেমে আসা শীতল বারিধারার প্রতীক্ষায় প্রহর গোনে; তেমনি মানুষের অন্তরও অনেক সময় গুনাহের পঙ্কিলতায় আবিল হয়ে বড় কোনো ব্যক্তিত্ত্বের আলোকোজ্জ্বল নসিহতের সন্ধানে থাকে। যা তার তপ্ত হৃদয় শীতল করবে। ভাঙা মন জোড়া লাগাবে। শয়তান আর নসফের জালে আটকা পড়া মানসকে করবে শৃঙ্খলমুক্ত। নহিহতমূলক আলাপন উলামাগণ অনেক সময় স্বতন্ত্র গ্রন্থে করেন, অনেক সময় ভিন্ন বিষয়ের ভেতর দিয়ে তা ছড়িয়েছিটিয়ে রাখেন। সচেতন পাঠককে সেখান থেকে সযত্নে তা কুড়িয়ে নিতে হয়। কিন্তু একবিষয়ের রচনার পাতা থেকে অন্য বিষয়কে গভীর দৃষ্টি হেনে দক্ষ ডুবুরির মতো সমুদ্রের তলদেশ থেকে মনি-মুক্তা আহরণের ন্যায় তুলে আনতে কতজনই বা পারে? কয়জন পাঠকেরই বা থাকে এমন সুদূরপ্রসারী দৃষ্টি ও পাঠ বিচক্ষণতা? এসব কথা বিবেচনা করে দক্ষ পাঠক অনেক সময় নিজের আহরিত নসিহতের সেই টুকরোগুলো সুবিন্যস্ত করে অন্যদের সামনে তুলে ধরার প্রয়াস পান। আমাদের হাতে থাকা বইটিও এমন একটি সংকলন। আরবের প্রখ্যাত আলিম ও সুলেখক সালেহ আহমাদ শামি ফতোয়া ইবনে তাইমিয়া অধ্যয়নকালে নসিহতমূলক কথাগুলো আলাদা করেন এবং পরে সেগুলোকে মলাটবদ্ধ করে পাঠক সমীপে মাওয়ায়িজে ইবনে তাইমিয়া নামে পেশ করেন। সেই বইয়েরই বাংলা ভাষান্তরিত রূপ হলো- জীবন গড়ার কথামালা।

    ৳ 90৳ 180
    প্রকাশনী:
  • প্রবৃত্তির দাসত্ব

    প্রবৃত্তির দাসত্ব করতে করতে পাপে ভরেছে চিত্ত হারিয়েছি পথ, কোন নায়ে রাখব পা কোন পথে গেলে পাবো মুক্তির দেখা স্রষ্টার সৃষ্টির সেরা হয়েও হারিয়েছি মনুষ্যত্ব। হ্যাঁ কবি দাউদুল ইসলাম যথার্থই বলেছেন। মনের খেয়াল খুশি মত চলাই প্রবৃত্তির দাসত্ব। পৃথিবীর সৌন্দর্য, মনোমুগ্ধকর পরিবেশে মুগ্ধতা এবং নিরর্থক কাজ-কর্মের প্রতি আসক্তি তৈরির মাধ্যমে প্রবৃত্তি মানুষকে প্রতারিত করে থাকে। প্রবৃত্তির মুখাপেক্ষী হলে মানুষের মধ্যে মনুষ্যত্ব থাকে না। নিয়ম-কানুন, ধর্ম-কর্ম বলতে কোনো কিছুর অস্তিত্ব প্রবৃত্তিপূজারির মধ্যে অবশিষ্ট থাকে না। এজন্য প্রবৃত্তির দাসত্ব মানুষের বড় শত্রু। বুসতি রহ. বলেন, ‘প্রবৃত্তিকে তোমার অধীন করো, অন্যথায় প্রবৃত্তিই তোমাকে তার অধীন করে ফেলবে।’ কুপ্রবৃত্তির অনুসরণ কল্যাণকে বাধাগ্রস্থ করে, বিবেককে করে প্রান্তিকতার শিকার। কেননা, তা প্রসব করে নোংরা চরিত্র, প্রকাশ করে লাঞ্ছনাদায়ক কর্মকাণ্ড, মানবতার আচ্ছাদনকে করে কলঙ্কিত এবং অনিষ্টতার প্রবেশদারকে করে অবারিত। প্রবৃত্তি মানুষের সবচেয়ে বড় শত্রু। যত শত্রুর বিরুদ্ধে মানুষকে সংগ্রাম করতে হয়, যুদ্ধ করতে হয়, তার মধ্যে প্রবৃত্তি সবচেয়ে কঠিন শত্রুযার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা অপরিহার্য দায়িত্ব। কিন্তু কীভাবে করবেন সে যুদ্ধ? আরবের পাঠকনন্দিত লেখক শাইখ সালেহ আল-মুনাজ্জিদ ইতিবাউল হাওয়া ও শাহওয়াত গ্রন্থদ্বয়ে তুলে ধরেছেন সে যুদ্ধের বিভিন্ন কৌশল। সুতরাং প্রবৃত্তির সুষ্ঠু পরিচালনার জন্য পড়ুন-প্রবৃত্তির দাসত্ব।

    ৳ 110৳ 220
    প্রকাশনী:
  • মুহাম্মদ আল-ফাতিহ (কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের মহানায়ক)

    কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের মহানায়ক সুলতান মুহাম্মদ আল-ফাতিহের জীবন-উপাখ্যান নিয়ে রচিত ‘মুহাম্মদ আল-ফাতিহ’। তৎকালীন বিশ্বের পরাশক্তি রোমান সাম্রাজ্যের কেন্দ্রস্থল ছিল কনস্টান্টিনোপল। এর বিজয়ের ব্যাপারে রাসুল সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম ভবিষ্যৎবাণী করেছিলেন, মুসলিমদের সেই সেনাবাহিনী ও সেনাপতি কতইনা উত্তম, যারা কনস্টান্টিনোপল জয় করবে। ফলে এই সৌভাগ্য অর্জন করার লক্ষ্যে যুগে যুগে মুসলিম সেনাপতি ও সেনাবাহিনী কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন। কিন্তু ইতিহাস অপেক্ষায় ছিল সেই মহান ব্যক্তির সাক্ষাৎ লাভে, যে সেই শহরের বুকে বিজয়-কেতন ওড়াবে এবং বাস্তবায়ন করবে প্রিয়নবির ভবিষ্যৎবাণী। শতাব্দির পর শতাব্দি অতিক্রান্ত হওয়ার পর অবশেষে দেখা মিলল সেই অমিততেজা বীর পুরুষের, যিনি পৃথিবীর বুকে বিস্ময় হয়ে দেখা দিয়েছিলেন। মানবেতিহাসের যুদ্ধ-অধ্যায়ে অবিস্মরণীয় বিজয়-কৌশলের চিত্র এঁকেছিলেন। পানির জাহাজ ডাঙায় চড়িয়ে দখল করে নিয়েছিলেন রোমানদের শৌর্য-বীর্যের প্রতীক কনস্টান্টিনোপল। রোমান সাম্রাজ্যের রাজধানী কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের সেই মহানায়ক ছিলেন সুলতান মুহাম্মদ আল-ফাতিহ। তার জীবন-উপাখ্যান নিয়েই রচিত হয়েছে এই বইটি। সেই সাথে উসমানি খিলাফতের উত্থান ও প্রথমদিকের উসমানি খলিফাদের ধারাবাহিক পরিচিতির কিঞ্চিৎ বিশ্লেষণাত্মক বিবরণও রয়েছে। আরবের প্রখ্যাত লেখক ও ইতিহাস-গবেষক ড. আলি মুহাম্মদ সাল্লাবির কলমে এই মহান মুজাহিদের জীবনী পড়তে আশা করি ভালো লাগবে, পাঠকহৃদয় মুগ্ধ ও আলোড়িত করবে।

    ৳ 225৳ 320
    প্রকাশনী:
  • আল-আকিদাতুল হাসানাহ

    আকিদা এমন এক নিয়ন্ত্রক, যা মানুষের কাজকর্ম, আচার-আচরণ থেকে শুরু করে সার্বিক ব্যবহারবিধি নিয়ন্ত্রণ করে। তার চালচলনের রীতিনীতিকে দিকনির্দেশনা প্রদান করে। তাই আকিদার সামান্যতম অংশেও যদি বিচ্যুতি ঘটে তাহলে তা মানুষের পরিব্যাপ্ত জীবনে এক ভয়ংকর বিশৃংখলার জন্ম দেবে এবং সরল পথের মাঝে অঘোচানো এক দূরত্ব সৃষ্টি করবে। আমরা নিজেদের চলার পথে যত বিকৃতি আর বক্রতার শিকার হচ্ছি, সবকিছুর মূল কারণ হলো, আমরা কাল্পনিক চিন্তাবিশ্বাস ও অবাস্তব আদর্শের দিকে ঝুঁকে পড়েছি। তাই নতুন করে মানবসভ্যতার আকিদা সংশোধন ও মানসিকতা বিশুদ্ধকরণের প্রতি দায়িত্ববান হওয়া একান্ত আবশ্যক। নবোদ্যমে কাল্পনিক বিশ্বাস, অবাস্তব মতাদর্শের সংস্কার ও পরিমার্জনের প্রতি যত্নবান হওয়া এবং সতর্ক দৃষ্টি রাখা অপরিহার্য। সত্য কথা হলো সুমহান এই দীনের বুঝ ও হাকিকত বর্তমান প্রজন্মের কাছে অজানাই রয়ে গেছে। তাদের বিরাট অংশই বক্রতা ও প্রান্তিকতার শিকার হয়েছে। তাই মহান ইমাম ও যুগসংস্কারক শাহ ওয়ালিউল্লাহ দেহলবি রহ. প্রণীত এবং সময়ের প্রতিশ্রুতিশীল অনুবাদক আলী হাসান উসামা অনূদিত বিশুদ্ধ আকিদার গ্রন্থ আল-আকিদাতুল হাসানাহ’র পাঠ-সরোবরে প্রশান্ত অবগাহন করায় সত্যসন্ধানী পাঠকের প্রতি সশ্রদ্ধ সালাম। আসুন, দৃঢ় প্রত্যয়ের সঙ্গে আমরা ঝালিয়ে নিই দীর্ঘদিনের জংধরা বিশ্বাস। শুদ্ধ করে নিই প্রান্তিক দৃষ্টিভঙ্গি ও গলদ মানসিকতা।

    ৳ 95৳ 135
    প্রকাশনী:
  • ইলাল উখতিল মুসলিমা

    ‘মুসলিম বোনের প্রতি’— জীবন ও জগৎজুড়ে অসংখ্য গল্প। নারীর জীবনজুড়ে যত গল্প, তার সবচেয়ে উৎসাহী পাঠক হয় তার বোন। কী শৈশব, কী কৈশোর, সংসার, সন্তান, সমাজ নিয়ে জীবনযুদ্ধের ময়দান; সবখানেই একজন বোনের মতো দরদি শ্রোতা কোথায় পাওয়া যায়! কে আছে বোনের মতো যে জীবনের ফেলে দেয়া পাণ্ডুলিপি তুলে এনে সুন্দর পরামর্শ দিয়ে সহজ রাস্তার রঙিন ছবি এঁকে দেয় ধূসর কাগজে। এর কারণ হয়তো এই— যে সমাজ ও পরিবেশে একটি কন্যাসন্তান বেড়ে ওঠে, ঠিক একই প্রাপ্তি ও প্রতিকূলতা নিয়ে নারী হয়ে ওঠে তার বোনটিও।

    ৳ 235৳ 334
    প্রকাশনী:
  • আলোর দিশারী (Alor Dishari)

    ‘আলোর দিশারি’ পাকিস্তানের সুপরিচিত উপন্যাসিক ও সাহিত্যিক মরহুম আবদুল্লাহ ফারানি লেখা ‘রওশন সেতারে’ বইয়ের অনুবাদ। ‘আলোর দিশারি’র মূল লেখক কিশোরদের উপযোগী ভাষায় খুবই নান্দনিক উপস্থাপনা, চমৎকার ভাষাশৈলী এবং সাবলীল শব্দচয়নে পরিচিত ও অপরিচিত প্রায় ২২জন সাহাবির জীবনকথা, তাদের ইমান গ্রহণের ঘটনা, আল্লাহ ও তাঁর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর জন্য তাদের ত্যাগ ও ভালবাসার কথা, দীনের জন্য আল্লাহর রাস্তায় জীবন উৎসর্গের ঘটনা খুবই সুন্দরভাবে উপস্থাপন করেছেন। সুন্দর এই বইটি অনুবাদ করেছেন বেশকিছু পাঠকপ্রিয় বইয়ের অনুবাদক মাওলানা আহসান ইলিয়াস। অনুবাদক বইটি কিশোর পাঠকদের উপযোগী ভাষায় অনুবাদ করেছেন। তবে বইটি যেকোনো বয়সের পাঠককে সাহাবিদের জীবনী পাঠে অনুপ্রাণিত করবে।

    ৳ 110৳ 220
    প্রকাশনী:

Main Menu

×