খালিদ বিন ওয়ালিদ রা.

৳ 180৳ 300

In stock

সামরিক জগতের চিরবিস্ময় খালিদ বিন ওয়ালিদ রা. কেবল অপরাজিত ও সর্বশ্রেষ্ঠ সেনানায়ক হিসাবেই নন, চরিত্র ও মহত্ত্বের যেকোনো মাপকাঠিতেই তিনি একজন যুগোত্তীর্ণ পুরুষ ছিলেন। একজন সত্যিকার মুজাহিদের চরিত্র ছিল তার। এ চরিত্র তিনি লাভ করেছিলেন আকায়ে-নামদার হযরত মুহাম্মদ মুসতফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সান্নিধ্যে এসে। সৈনিকজীবনের সফলতা লাভের মূল সূত্রটিও তিনি লাভ করেছিলেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছেই। এ পথ বেয়েই তিনি লাভ করেছিলেন জীবনের শ্রেষ্ঠতম সম্মান ‘সাইফুল্লাহ’ (আল্লাহর তলোয়ার) খেতাব। শুধু তাই নয়, সাড়ে তেরো শ বছর পরও তিনি লাভ করেছেন এ যুগের এক ‘বিদ্রোহী বুলবুলে’র অবিমিশ্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। তার বিখ্যাত ‘খালেদ’ কবিতার কয়েকটি পঙক্তি নিম্নরূপ :

তুলনা করুন

সামরিক জগতের চিরবিস্ময় খালিদ বিন ওয়ালিদ রা. কেবল অপরাজিত ও সর্বশ্রেষ্ঠ সেনানায়ক হিসাবেই নন, চরিত্র ও মহত্ত্বের যেকোনো মাপকাঠিতেই তিনি একজন যুগোত্তীর্ণ পুরুষ ছিলেন। একজন সত্যিকার মুজাহিদের চরিত্র ছিল তার। এ চরিত্র তিনি লাভ করেছিলেন আকায়ে-নামদার হযরত মুহাম্মদ মুসতফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সান্নিধ্যে এসে। সৈনিকজীবনের সফলতা লাভের মূল সূত্রটিও তিনি লাভ করেছিলেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছেই। এ পথ বেয়েই তিনি লাভ করেছিলেন জীবনের শ্রেষ্ঠতম সম্মান ‘সাইফুল্লাহ’ (আল্লাহর তলোয়ার) খেতাব। শুধু তাই নয়, সাড়ে তেরো শ বছর পরও তিনি লাভ করেছেন এ যুগের এক ‘বিদ্রোহী বুলবুলে’র অবিমিশ্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। তার বিখ্যাত ‘খালেদ’ কবিতার কয়েকটি পঙক্তি নিম্নরূপ :

‘খালেদ! খালেদ! শুনিতেছ নাকি সাহারার আহা-জারি?
কত ‘ওয়েসিস’ রচিল তাহার মরুনয়নের বারি।
মরীচিকা তার সন্ধানী-আলো দিকে দিকে ফেরে খুঁজি’-
কোন্ নিরালায় ক্লান্ত সেনানী ডেরা গাড়িয়াছ বুঝি!
বালু-বোররাকে সওয়ার হইয়া ডাক দিয়া ফেরে ‘ল’,
তব তরে হায়! পথে রেখে যায় মৃগীরা মেশ্ক-বু!
খর্জুর-বীথি আজিও ওড়ায় তোমার জয়ধ্বজা,
তোমার আশায় বেদুইন-বালা আজিও রাখিছে রোজা।
মক্কার হাতে চাঁদ এলো যবে তকদিরে আফতাব
কুল মখলূক দেখিতে লাগিল শুধু ইসলামী খাব,
শুকনো খুব্জ খোর্মা চিবায়ে উমর দারাজ-দিল
ভাবিছে কেমনে খুলিবে আরব দীন দুনিয়ার খিল,-
এমন সময় আসিল জোয়ান হাতেলিতে হাথিয়ার
খর্জুর-শিষে ঠেকিয়াছে গিয়া উঁচা উষ্ণীষ তার!
কব্জা তাহার সব্জা হয়েছে তলওয়ার-মুঠ ড’লে,
দু’চোখ ঝলিয়া আশার দজলা ফোরাত পড়িছে গ’লে!
বাজুতে তাহার বাঁধা কোরআন, বুকে দুর্মদ বেগ,
আলবোরজের চূড়া গুঁড়া-করা দস্তে দারুণ তেগ!
নেজার ফলা উল্কার মত উগ্রগতিতে ছোটে,
তীর খেয়ে তার আসমান-মুখে তারারূপে ফেনা ও’ঠে!
দারাজ দস্ত যেদিকে বাড়ায় সেই দিকে পড়ে ভেঙে!
ভাস্কর-সম যেদিকে তাকায় সেইদিক ওঠে রেঙে!
ওলিদের বেটা খালেদ সে বীর যাহার নামের ত্রাসে
পারস্য-রাজ নীল হয়ে উঠে ঢলে পড়ে সাকী-পাশে!
রোম-সম্রাট শরাবের জাম-হাতে-থরথর কাঁপে,
ইস্তাম্বুলী বাদশার যত নজ্জূম আয়ু মাপে!
মজলুম যত মোনাজাত করে কেঁদে কয়, ‘এয় খোদা,
খালেদের বাজু শম্শের রেখো সহি-সালামতে সদা!’

খালেদ! খালেদ! ফজর হল যে, আজান দিতেছে কৌম্,
ঐ কোনো কোনো- ‘আসসালাতু খায়রু মিনান্নৌম!’
যত সে জালিম রাজা-বাদশারে মাটিতে করেছ গুম্
তাহাদেরি সেই থাকেতে খালেদ করিয়া তয়ম্মুম্
বাহিরিয়া এস, হে রণ ইমাম, জমায়েত আজ ভারি!
আরব, ইরান, তুর্ক, কাবুল দাঁড়ায়েছে সারি সারি!
আব জমজম উথলি উঠিছে তোমার ওজর তরে
সারা ইসলাম বিনা ইমামেতে আজিকে নামাজ পড়ে!
খালেদ! খালেদ! ফজরে এলে না, জোহর কাটানু কেঁদে,
আসরে ক্লান্ত ঢুলিয়াছি শুধু বৃথা তহরিমা বেঁধে!
এবে কাফনের খেল্কা পরিয়া চলিয়াছি বেলা শেষে,
মগরেবের আজ নামাজ পড়িব আসিয়া তোমার দেশে!
খালেদ! খালেদ! সত্য বলিব, ঢাকিব না আজ কিছু,
সফেদ দেও আজ বিশ্ববিজয়ী, আমরা হটেছি পিছু!
তোমার ঘোড়ার ক্ষুরের দাপটে মরেছে যে পিপীলিকা,
মোরা আজ দেখি জগৎ জুড়িয়া তাহাদেরি বিভীষিকা!
হটিতে হটিতে আসিয়া পড়েছি আখেরী গোরস্তানে,
মগরেব বাদে এশার নামাজ পাব কি না কে সে জানে!
খালেদ! খালেদ! বিবস্ত্র মোরা পরেছি কাফন শেষে,
হাতিয়ার-ছাড়া দাঁড়িয়েছি তাই তহরিমা বেঁধে এসে!
খালেদ! খালেদ! মিসমার হল তোমার ইরাক শাম,
জর্ডন নদে ডুবিয়াছে পাক জেরুজালেমের নাম!
খালেদ! খালেদ! দু’ধারী তোমার কোথা সেই তলোয়ার?
তুমি ঘুমিয়েছ, তলোয়ার তব সে ত নহে ঘুমাবার!
জং ধরেনি ক’ কখনো তাহাতে জঙ্গের খুনে নেয়ে,
হাথেলিতে তব নাচিয়া ফিরেছে যেন বেদুইন মেয়ে!
খাপে বিরামের অবসর তার মেলেনি জীবনে কভু,
জুলফিকার সে দু’খান হয়েছে, ও তেগ টুটেনি তবু!
তুমি নাই তাই মরিয়া গিয়াছে তরবারিও কি তব?
হাত গেছে বলে হাত-যশও গেল? গল্প এ অভিনব!
খালেদ! খালেদ! জিন্দা হয়েছে আবার হিন্দা বুড়ি,
কত হামজারে মারে যাদুকরী দেশে দেশে ফেরে উড়ি’!
ও কারা সহসা পর্বত ভেঙে তুহিন স্রোতের মত,
শত্রুর শিরে উন্মাদ বেগে পড়িতেছে অবিরত!
আগুনের দাহে গলিছে তুহিন আবার জমিয়া উঠে,
শির উহাদের ছুটে গেল হায়! তবু নাহি পড়ে টুটে!
খোদার হাবীব বলিয়া গেছেন আসিবেন ঈসা ফের,
চাই না মেহ্দী, তুমি এস বীর হাতে নিয়ে শমসের!

তিনি সে যুগে অজেয় বীরত্ব দিয়ে অসংখ্য সেনানায়ক ও সৈনিকের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা পেয়েছিলেন । যুগে যুগে তার সেসব কীর্তিগাথা মানুষের কাছে অবিমিশ্র শ্রদ্ধা অর্জন করে চলেছে। এ যুগেও এ উপমহাদেশের একজন শ্রদ্ধেয় জেনারেল আপন সামরিক জীবনে খালিদ রা.-এর কর্ম-কৌশল দেখেছেন বাস্তবতার নিরিখে, সমরবিজ্ঞানের আলোকে, শিক্ষা ও দীক্ষা নেওয়ার উৎস হিসেবে। বক্ষ্যমাণ গ্রন্থটি তার সামরিক জীবনের অভিজ্ঞতার আলোকে রচিত। গ্রন্থটি অনুবাদ করে বাংলা ভাষাভাষী পাঠকের খেদমতে পেশ করেছেন সুপ্রসিদ্ধ লেখক-অনুবাদক মাওলানা আবু সাঈদ মুহাম্মদ ওমর আলী রহ.। মাকতাবাতুল হেরা বইটি প্রকাশ করতে পেরে গর্বিত। আল্লাহ তাআলা আমাদের সকল দীনী খেদমত কবুল করুন, আমিন।

Ready to ship in 1-3 business day from Bangladesh


 

Shipping Policy

আমরা ২-৪দিনের মধ্যে ডেলিভারি দিয়ে থাকি। তবে কোন কারণ বশত ডেলিভারি হতে পারে। সারাদেশে ডেলিভারি চার্জ ৫০ টাকা। ঢাকার বাহিরে আপনাকে অগ্রিম মূল্য পরিশোধ করতে হবে। ১৫০০ টাকার বেশি অর্ডার করলে ডেলিভারি ফ্রি।


 

Refund Policy

অগ্রিম মূল্য ফেতর দেয়ার ক্ষেত্রে আমরা সর্বোচ্চ ৫ কর্ম দিবস সময় নিয়ে থাকি। ঐ সময়ের মধ্যে বিস্তারিত তদারকি করে আপনার অগ্রিম মূল্য ফেতর দেয়া হবে।

Additional information

লেখক

মেজর জেনারেল আকবর খান

অনুবাদক/সংকলক

আবু সাঈদ মুহাম্মদ ওমর আলী

প্রকাশকাল

2017

পাতা

312

ভাষা

বাংলা

Only logged in customers who have purchased this product may leave a review.

Reviews

There are no reviews yet.

Vendor Information

  • Store Name: কিতাব সমাহার
  • Vendor: Ruhul Amin
  • Address: C4, Level 3, 32/2 Mirpur Road
    Science Laboratory
    Dhaka
    Dhaka
    1205
  • No ratings found yet!

বিষয় নির্বাচন করুন

খালিদ বিন ওয়ালিদ রা.

৳ 180৳ 300

Add to Cart